বায়তুল মুকাররমের খবিস ওবাইদুল হক্ব ঈদে মিলাদুন্নবির বিরোধিতা করার কারনে পচে-গলে মরেছে..


বায়তুল মুকারমের খবীস উবায়দুল হক্ব ঈদে মিলাদুন্নবির সময় আসলে বলত " ঈদে মিলাদুন্নবি বিদয়াত " নাউযুবিল্লাহ । অথচ হারাম পহেলা বৈশাখের পক্ষে এই খবিস উবাইদুল হক বলেছিল: "আল্লাহর বহু বড় নিয়ামত হলো নববর্ষ। নববর্ষ পালন করতে গিয়ে দান-খয়রাত করতে হবে শুকরিয়া আদায় করতে হবে দোয়া করতে হবে।"(নাউযুবিল্লাহ্) ( তথ্যসূত্র: দৈনিক মানবজমিন ১০/০৪/২০০৪ ইং শেষ পৃষ্ঠা)

 এ ভুল ফতওয়ার কাফফারা সে মৃত্যুর পর আদায় করে। স্বাভাবিকভাবে একটা মানুষ মারা যাওয়ার পর তার লাশ পচন ধরতে সময় লাগে। আর আল্লাহ-ওয়ালা বা মসজিদের ঈমামদের লাশে এত তাড়াতাড়ি পচন ধরার তো প্রশ্নই আসে না। কিন্তু ওবাইদুল হকের মৃত্যুর পর তার বিপরীত দেখা গেলো। মৃত্যুর সাথে সাথে লাশে পচন ধরলো, পেট ধারণ করলো বিরাট আকৃতি। বরফের বিছানায় রেখেও তা থামানো যাচ্ছিলো না। ছবিতে আপনারা নিজেরাই এ অলৌকিক বিষয়টি দেখতে পাচ্ছেন, লাশ রাখা হয়েছে বরফের বিছানার উপর, দেওয়া হচ্ছে বাতাস। তারপরও মানুষ পচা গন্ধের নাকে আঙ্গুল দিয়ে রেখেছে। আবু লাহাব যেমন পচে গলে মরেছে তেমনি এই খবিস মরেছে। যারা ঈদে মিলাদুন্নবির বিরোধীতা করবে তারাও আবু লাহাবের ন্যায় পচে গলে মরবে ।


শেয়ার করুন

লেখকঃ

পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট